শিল্প-সাহিত্য-বিনোদন

চলে গেলেন বলিউডের `ডিস্কো কিং` বাপ্পী লাহিড়ী

ডেস্ক রিপোর্ট

প্রকাশিত: ১৯:৫৭, ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০২২

চলে গেলেন বলিউডের `ডিস্কো কিং` বাপ্পী লাহিড়ী

সঙ্গীত পরিচালনা করে গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে নাম উঠেছিলো বাপ্পী লাহিড়ীর। ছবি : সংগৃহীত।

'আই অ্যাম আ ডিস্কো ড্যান্সার' গানটি শুনে শুধু ভারত নয় আরও অনেক দেশের দর্শক-শ্রোতা নেচেছেন, গেয়েছেন। কয়েক দশক আগে সুর করা এ গান পুরনো হয়নি কখনোই। এখনও এ গান শুনে এর সঙ্গে সুর মেলান, সুরের ছন্দে পা ফেলেন শ্রোতারা। জনপ্রিয় এমন আরও অনেক গানের সুর করে ডিস্কোকে মূলত তিনিই জনপ্রিয় করে তুলেছিলেন ভারতে। এজন্য লোকমুখে তিনি পেয়েছিলেন 'কিং অব বলিউড ডিস্কো'র খেতাব। ডিস্কো ধারার বাইরেও সুর করেছেন ও গেয়েছেন অসংখ্য গান যেগুলো এখনও অনেকের মুখে মুখে ফেরে। জাদুকরি এই সুরস্রষ্টা ও গায়ক চলে গেলেন না ফেরার দেশে। গতকাল মঙ্গলবার রাতে মুম্বাইয়ের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন এই শিল্পী, সবার প্রিয় 'বাপ্পী দা'। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিলো ৬৯ বছর।

হাসপাতাল সূত্র জানায়, একমাস ধরে হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন বাপ্পী লাহিড়ী। চিকিৎসা শেষে সোমবার তাকে ছাড়পত্র দেওয়া হয়। তবে মঙ্গলবার তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটলে বাসায় ডাক্তার ডাকা হয়। পরে তাঁকে আবারও হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। মঙ্গলবার মধ্যরাতের কিছু আগে 'অবস্ট্রাকটিভ স্লিপ অ্যাপনিয়ায়' তাঁর মৃত্যু হয়।

আশি ও নব্বইয়ের দশকে তাঁর সুর করা নাচনির্ভর ডিস্কো ধারার অনেকগুলো গান তুমুল জনপ্রিয়তা পায়। এভাবে ভারতজুড়ে ডিস্কো গানের পাশাপাশি এর সঙ্গে নাচেরও নতুন ধারা জনপ্রিয় হয়ে ওঠে। তাঁর সুর করা গান গেয়ে জনপ্রিয়তা পেয়েছেন অনেকেই। চলচ্চিত্রে তাঁর গানের সঙ্গে নেচে তারকাখ্যাতি পেয়েছেন অনেক অভিনয় শিল্পী।

শুধু জাদুকরি সঙ্গীত প্রতিভার কারণেই তিনি জনপ্রিয় ছিলেন না, অনেকের কাছেই বাপ্পী লাহিড়ী হয়ে উঠেছিলেন ফ্যাশন আইকন। রঙিন চশমা, বর্ণিল জ্যাকেট আর সোনার গয়না ছাড়া তাঁর অবয়ব কল্পনাই করা যায় না। কেন তিনি এতো গয়না পরতেন, তা জানতে ভক্তদেরও আগ্রহের অন্ত ছিলো না। এক সাক্ষাৎকারে বাপ্পী লাহিড়ী এর উত্তরও দেন। তিনি বলেছিলেন, যুক্তরাষ্ট্রের কিংবদন্তি সঙ্গীত তারকা এলভিস প্রিসলি তাঁর অনেক পছন্দের। প্রিসলিও এমন সাজ-পোশাক পছন্দ করতেন। পছন্দের তারকাকে অনুসরণ করেই তাঁর এমন সাজসজ্জা।

১৯৫২ সালের ২৭ নভেম্বর ভারতের পশ্চিমবঙ্গের জলপাইগুড়িতে জন্ম বাপ্পী লাহিড়ীর। তাঁর আসল নাম অলোকেশ লাহিড়ী হলেও বাপ্পী লাহিড়ী নামেই তিনি পরিচিতি পান। তাঁর বাবা অপরেশ লাহিড়ী ও মা বাঁশরী লাহিড়ী দুজনেই বিশেষত ধ্রুপদী ও শ্যামা সঙ্গীতের খ্যাতিমান শিল্পী ছিলেন। বাবা-মায়ের কাছেই সঙ্গীতে তালিম শুরু করেন বাপ্পী লাহিড়ী। মাত্র তিন বছর বয়সে তবলা বাজাতে শিখেছিলেন বাপ্পী লাহিড়ী। ১৯ বছর বয়সে সঙ্গীত পরিচালক হিসেবে কাজ শুরু করেন তিনি। 'বঙ্গবিভূষণ' পুরস্কারসহ আরও অনেক পুরস্কার-সম্মাননায় ভূষিত হয়েছিলেন এই শিল্পী। ৩৩টি চলচ্চিত্রে ১৮০টি গানে সঙ্গীত পরিচালনা করে গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে ১৯৮৬ সালে নাম ওঠে তাঁর। হলিউডের চলচ্চিত্র 'ইউ ডোন্ট মেস উইথ দ্য জোহানস'-এ ব্যবহার করা হয়েছিলো এই শিল্পীর গাওয়া গান 'জিমি জিমি আজা আজা'। সঙ্গীতের বাইরে রাজনীতিতেও যুক্ত হয়েছিলেন বাপ্পী লাহিড়ী।

উল্লেখ্য, গতকাল ১৫ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় কলকাতার একটি হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেন আধুনিক বাংলা গানের সম্রাজ্ঞী ও গীতশ্রী হিসেবে খ্যাত শিল্পী সন্ধ্যা মুখোপাধ্যায়। এর আগে ৬ ফেব্রুয়ারি মারা যান ভারতের আরেক কিংবদন্তি সঙ্গীতশিল্পী লতা মঙ্গেশকর। সূত্র : বিবিসি, এনডিটিভি, নিউজবাংলা টুয়েন্টিফোর ও উইকিপিডিয়া।